বাসা থেকে কীভাবে অর্থ উপার্জন করবেন

আপনি বাসায় থেকে অনলাইনে কাজ করে কীভাবে উপার্জন করবেন তা জানতে চান? হ্যাঁ, আপনি যদি সঠিক জায়গায় খোঁজ করেন তবে আপনি জানতে পারবেন। আমি একটি সহজ এবং ভাল গাইডের সংক্ষিপ্তসার করেছি, যেখানে আপনি আপনার নিজের ধারণা থেকে কিছু আশ্চর্যজনক কাজ জানতে পারবেন।

বাসায় অনলাইন থেকে কীভাবে অর্থ উপার্জন করবেন

বাসা থেকে অনলাইনে কাজ করা অনেক লাভজনক ছিল না,বছর কয়েক আগে,। কিন্তু, প্রকৃত অনলাইন কাজ এবং Scam এর মধ্যে পার্থক্য করা লোকদের পক্ষে সত্যই এগুলো করা সম্ভব ছিল। এখন ইন্টারনেট প্রযুক্তির অগ্রগতির সাথে সাথে, বাসায় কাজের সুযোগ থেকে অর্থ উপার্জন সত্যিই সহজ হয়ে উঠেছে।

আপনি আপনার নিজের বস হয়ে অনলাইনে কাজ করে এই বিশ্বজুড়ে আপনার স্বীকৃতি তৈরি করতে পারেন। আর যখন অনলাইনে কাজ শুরু করেন, তখন কেবল ৮ থেকে ৫ টি কাজের সময়সূচী থেকে নিজেকে মুক্ত করুন। তাই অনলাইনে কাজ করা আপনার জন্য সময় উপযোগী।

ঘরে বসে অনলাইনে কাজের বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় আপনি জানতে পারেন। আপনি খণ্ডকালীন সুযোগ বা দীর্ঘমেয়াদী কাজ করে অতিরিক্ত অর্থোপার্জনের সন্ধান করে থাকেন। আপনি আপনার পরিবারের সাথে সময় দিতে পারবেন, ভ্রমণ করতে পারবেন মন খুলে, অনেক মজা করতে পারবেন এবং আরও অনেক কিছুর জন্য বেশি সময় ব্যয় করতে পারবেন।

বাসায় থেকে কাজ শুরু করতে আপনার কি কি জিনিস প্রয়োজন
আপনাকে অনলাইনে কাজ শুরু করার জন্য কোন জিনিসগুলি থাকা উচিত তা নীচে তালিকাভুক্ত করা হল:
ইন্টারনেট সংযোগ দিতে হবে
ল্যাপটপ / কম্পিউটারের প্রয়োজন
কাজের দক্ষতা থাকতে হবে
ঝামেলা মুক্ত কর্মক্ষেত্র হতে হবে
নির্ধারণ ও উত্সর্গ
ধারাবাহিকতা

৬ টি অনলাইন কাজে আয়ের সেরা উপায়

অনলাইনে কাজের অনেকগুলি বিভিন্ন প্ল্যাটফর্ম রয়েছে যা আপনাকে বাসায় বসে কাজের সুযোগ করে থাকেন আর আশ্চর্যজনকভাবে অর্থ উপার্জনের অফার দেয়। একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হতে হলে আপনাকে কেবল সেই প্ল্যাটফর্মগুলি খোঁজ করতে হবে এবং সাইন আপ করতে হবে।

আমি কিছু অনলাইনে কাজের তালিকাভুক্ত করেছি যা আপনার বাড়ি থেকে অর্থোপার্জনের সুযোগ  করে। যদি আপনি ভবিষ্যতে সত্যিকারের অনলাইন কাজের দক্ষতা অর্জন করতে চান তবে নীচে উল্লিখিত ধারণাগুলি একবার পডুনঃ

১. ফ্রিল্যান্সিং/ Freelancing

ফ্রিল্যান্সাররা হল কর্মসংস্থানযুক্ত ব্যক্তি যারা সংস্থা বা ক্লায়েন্টদের সাথে চুক্তির ভিত্তিতে অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং কাজ করে। ফ্রিল্যান্সিং বিশ্বব্যাপী ক্লায়েন্টদের আপনার পরিষেবাদি সরবরাহ আজকাল অনেক বাড়ছে। ফ্রিল্যান্সিং সম্প্রদায়ের উজ্জ্বল সাফল্যের কারণে গত কয়েক বছরে হাজার হাজার ফ্রিল্যান্স প্ল্যাটফর্ম চালু করা হয়েছে। তবে অনেক লোক আজ অনলাইনে বাসায় থেকে কাজ করার ধারণা নেয় এবং ফ্রিল্যান্সিং কাজে যোগদানের দিকে অত্যন্ত ঝুকে আছে।

বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং বাজারে ফাইভার এবং আপওয়ার্ক দুটি সর্বাধিক জনপ্রিয় অনলাইন কাজের সাইট। আপনি একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করে এই প্ল্যাটফর্মগুলির সদস্য হতে পারেন যাতে করে আপনি অনলাইনে ভাল অর্থ আয় করতে পারেন। এখানে ফ্রিল্যান্সাররা ওয়েব ডেভলপমেন্ট, গ্রাফিক ডিজাইনিং, কন্টেন্ট রাইটিং, প্রোগ্রামিং, ফটোগ্রাফি এবং বিভিন্ন অনলাইন কাজ সম্পর্কিত তাদের সেবাগুলি সরবরাহ করছে।

অনলাইন প্রযুক্তির সাথে সাথে, আপনি অনলাইনে কাজ করতে পারেন আর আপনি ক্লায়েন্টদের কাছ থেকে বার্তাগুলি অনলাইনে পাওয়া শুরু করেন এবং তারা তাদের কাজ সম্পর্কে সম্পূর্ণ সরবরাহ করেন। আপনি আপনার নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে অর্ডারগুলি কাজ ভাল ভাবে সম্পন্ন করার পরে, আপনার ক্লায়েন্টরা কাজটি দেখে অনুমোদন করে এবং আপনাকে অর্থ প্রদান করে আপনার অনলাইন অ্যাকাউন্টে। কিন্তু আপনি যদি ফ্রিল্যান্সের দক্ষতার সাথে কাজ করতে চান তাহলে আপনি ফ্রিল্যান্সার হয়ে ভাল নগদ অর্থ উপার্জন করতে পারবেন আপনার অনলাইন ক্যারিয়ারে।

যদি একবার আপনার ক্লায়েন্টদের কাছে আপনি ভাল গুণমান কাজ সরবরাহ করা শুরু করেন, তবে আরও অনেক ক্লায়েন্ট তাদের অনলাইন কাজের জন্য আপনার কাছে যাবেন। একজন  ফ্রিল্যান্সার তার ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ারে সাফল্য হচ্ছে সততার সাথে কাজ করা, নিবেদিত থাকা এবং বুদ্ধিমানের সাথে যোগাযোগ করা।

২. ব্লগিং/ Blogging

ব্লগিং হচ্ছে এমন একটি অনলাইন সাইট যা কয়েক দশক আগে, ব্লগিং সময়ে আপনার ব্যক্তিগত গল্প বা রুটিন সম্পর্কে লেখা থাকে। কিন্তূ আপনার ইন্টারনেটে বেশিরভাগ অগ্রগতির মতো, ব্লগিং এর নিয়ম পরিবর্তিত হয়েছে। অনেক উদ্যোক্তা আবিষ্কার করেছে বিপণনের জন্যও ব্লগ ব্যবহার করতে পারবেন আর সেখান থেকেই অনলাইন ব্লগিং শুরু হয়েছিল। একটি ব্লগ অনেকগুলি উদ্দেশ্যে ব্যবহার হয় যেমন এটি আপনার ব্যবসায়ের ব্র্যান্ডিং করতে, পণ্য বিক্রয় করতে, জ্ঞান ভাগ করে নেওয়ার জন্য এবং প্রচুর গ্রাহক পাওয়ার জন্য ব্যবহার করা।

অনলাইনে ব্লগিং শুরু করা বেশ সহজ এবং আপনি এটিতে বিনামূল্যে কাজ করতে পারেন। অনলাইনে আপনার নিজের ব্লগিং সাইট শুরু করার জন্য আপনার কোনও বিনিয়োগের বা টাকার দরকার নেই। আপনাকে আমি আপনার নিজের অনলাইনে ব্লগিং সাইটটি তৈরির জন্য পরামর্শ দিচ্ছি কারণ এটি অনলাইনে অর্থ উপার্জনের অন্যতম প্রধান উপায়। কিন্তূ আপনি আপনার ব্লগিংয়ে বিজ্ঞাপনের মাধমে,আপনার ব্লগকে বিভিন্ন সামাজিক নেটওয়ার্কগুলিতে বিজ্ঞাপন দিয়ে,অন্যান্য সংস্থাগুলির পণ্য বিক্রি করে,পর্যালোচনা করে আরও অনেক কিছু উপার্জন করতে পারেন।

৩. ইউটিউব চ্যানেল/ YouTube Channel

আপনি অনলাইনে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে, আপনার ইউটিউব চ্যানেলে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আপনি একটা ভাল অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। আপনি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে বাসায় থেকে কাজ করে অর্থ উপার্জনের জনপ্রিয় হতে পারেন। আপনার ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে এবং সমস্ত ব্র্যান্ড তাদের পণ্য বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে এটি ব্যবহার করবে। ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও বিজ্ঞাপনের সেরা মাধ্যম বা প্ল্যাটফর্ম যা দিন দিন বাড়ছে।

আপনি যদি ইউটিউব চ্যানেল শুরু করতে চান তাহলে তার জন্য কোনও অর্থের প্রয়োজন হয় না এবং এটি নগদ অর্থ ছাড়া তৈরি করতে পারেন। যদি আপনি আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি তৈরি করে কাজ করতে চান এবং কেউ যদি আপনাকে বলে যে আপনি দেরী করে ফেলেছেন, আপনি যেন তাদেরকে এড়িয়ে যাবেন এবং আপনি আপনার নিজ গতিতে এগিয়ে যাবেন। ইউটিউবে বিজ্ঞাপন এমন একটি জিনিস যা আগামী বছরগুলিতে আপনি একটি দীর্ঘ সময়ের জন্য এটিতে কাজ করে অর্থ আয় করতে পারেন তাই অন্য কোন চিন্তা ছাড়াই এটির জন্য আপনি আপনার মন প্রান দিয়ে আগিয়ে যান।

আপনার ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে কাজ করার আগে নিম্নের জিনিসগুলি মনে রাখবেন:
ইউটিউব চ্যানেলের উদ্দেশ্য সনাক্ত করুন
ইউটিউব চ্যানেলের শ্রোতা চিনুন
ইউটিউব চ্যানেলের বিষয়বস্তুর প্রকারটি জানুন
আপনার চ্যানেলের স্ট্রং ইউটিউব অপটিমাইজেশন কৌশলগুলি ব্যবহার করুন
ইউটিউব চ্যানেলের বিষয়বস্তু বুদ্ধিমানভাবে প্রচার করুন

৪. অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং/ Affiliate Marketing

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এমন একটি অনলাইন মার্কেটিং প্রক্রিয়া যেখানে আপনি অন্যান্য সংস্থাগুলির পণ্য বা সেবার বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকেন। আপনার বিজ্ঞাপনের লিঙ্কটিতে ক্লিক করে যখন কেউ নির্দিষ্ট সংস্থার পণ্য ক্রয় করে থাকে, তখন সংস্থাটি গ্রাহকদের আনার জন্য আপনাকে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ কমিশন আকারে দিয়ে থাকেন।

অনেকে আমাকে জিজ্ঞাসা করে যে আপনি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে বাসায় থেকে কাজের মাধমে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে অর্থ উপার্জন করার জন্য, আপনার কিছু অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং প্রোগ্রামের অংশ হওয়া উচিত এবং আপনার অনলাইনে নিয়মিত কাজ করা। যার মাধমে আপনি আপনার পণ্যগুলির বিজ্ঞাপনের জন্য আপনি আপনার ব্লগ, পৃষ্ঠাগুলি, ই-কমার্স সাইটগুলি, ল্যান্ডিং, ব্যানার বা সোশ্যাল নেটওয়ার্কগুলি ব্যবহার করে অর্থ আয় করতে পারেন।অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এটিতে আপনাকে একটি পয়সা বিনিয়োগ করার দরকার নেই। আপনি বিভিন্ন অ্যাফিলিয়েট ওয়েবসাইটের সদস্য হয়ে বিনামূল্যে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করতে পারেন এবং ঘরে বসে কাজ করে নগদ অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

আপনার অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং যদি অনেক ভিজিটর থাকে তবে আপনি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারেন। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং অর্থোপার্জনের উপায় এবং এটি থেকে হাজার ডলার উপার্জন করছে। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং পণ্য বিক্রয় করার জন্য আপনাকে ভালমানের ফটো, আকর্ষণীয় সামগ্রী, আকর্ষণীয় শিরোনাম এবং সঠিক ইন্টারনেট মার্কেটিং এর কৌশল ব্যবহার করতে হবে। আপনি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করতে যদি আগ্রহী হন তবে আমি আপনাকে অনলাইনে অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং জন্য অনুরোধ করব কারণ অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করা বেশ নির্ভরযোগ্য এবং নিরাপদ একটা অনলাইন সাইট।

৫. অনলাইন টিউটরিং/ Online Tutoring

অনলাইনে টিউটরিং করার মাধ্যমে আপনি অর্থ আয় করুন। অনলাইন টিউটরিং হচ্ছে কোন একটি ব্যক্তি বা একটি গ্রুপের সকল সদস্যকে অনলাইনে শেখানোর অনুশীলন করানো। অনলাইন টিউটরিং আবার রিয়েল-টাইম ক্লাস করার ধারণা যেখানে শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন ভৌগলিক অবস্থানে উপস্থিত থাকেন আর বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ব্যবহার করে থাকেন।

এখানে কারো কোনও সন্দেহের অবকাশ নেই, অনলাইন টিউটারিং আপনি বাসায় থেকে অর্থোপার্জনের করে থাকেন, তবে কিছু কিছু অনলাইন টিউটরিং সাইটগুলিতে রেজিস্ট্রেশন ফি প্রদান করতে বলে। তাই আপনার শিক্ষামূলক সেবা প্রদানের আগে অনলাইন সাইটের সাথে চুক্তি করার সময় আপনাকে অবশ্যই সচেতন থাকা উচিত।

Udemy একটি অনলাইন টিউটারিং প্ল্যাটফর্ম এখানে আপনাকে কোন অর্থ প্রদানের প্রয়োজন হবেনা। আপনি Udemy অনলাইন টিউটারিং সরঞ্জাম ব্যবহার করতে পারেন। আপনি Udemy কোর্স তৈরি করতে এবং পরে Udemy অনলাইনে বিক্রয় করতে পারেন। এমনকি student রাও অবাক হয়ে কোনও অর্থ ব্যয় না করে Udemy তে তাদের অনলাইন টিউটরিং সেবা দেয়। নিজের দক্ষতার উপর নির্ভর করে Udemy অনলাইন কোর্স তৈরি করে এবং সামাজিক নেটওয়ার্কের সাথে ভাগ করে নেয় যাতে তারা Udemy অনলাইন টিউটারিং কোর্সটি কিনতে পারে।

৬. আপনার নিজস্ব ব্র্যান্ড তৈরি করুন/ Build Your Own Brand

উদ্যোক্তা হিসাবে দেখা গেছে গত কয়েক বছরে একটি উদীয়মান প্রবণতা । অনেক তরুণ উদ্যোক্তা যারা উদ্যোক্তাদের জগতে কল্পিতভাবে উদ্ভাবন তৈরি করছে। এই অনলাইন বাজারে আপনার নিজের ব্র্যান্ড চালু করা অনেক সহজ হয়ে উঠেছে। হোম বেসড বিজনেস আইডিয়াগুলির জন্য অনেকগুলি বিকল্প রয়েছে।

আপনি ওয়েব ডিজাইনার, পোশাক ডিজাইনার, ব্যক্তিগত প্রশিক্ষক, গহনা প্রস্তুতকারক, ই-বুক লেখক, ইভেন্ট ম্যানেজার, সোশ্যাল মিডিয়া কনসালট্যান্ট, ক্যাটারার, ফান্ডারাইজার, লাইফ কোচ, ল্যান্ডস্কেপ ডিজাইনার, রহস্য ক্রেতার, ট্র্যাভেল প্ল্যানার ইত্যাদি হয়ে উঠতে পারেন।

নিজের ব্র্যান্ড তৈরি করে তা প্রচার করা কিন্তূ সহজ নয়। আপনি যদি একবার বিপণন শিল্পের সমস্ত ইনস এবং আউটগুলি জানতে পারা। এমন কিছু নেই যা আপনার বাড়িতে বসে কাজ করে নগদ অর্থ উপার্জন থেকে বিরত রাখতে পারে। আপনার সত্যিকারের যা প্রয়োজন তা হ’ল একটি অনলাইন বিপণনের ভাল ধারণা এবং বিক্রয় কৌশল। আপনি যদি নিজের ব্র্যান্ড তৈরি করতে এবং অনলাইনে আপনার পণ্যগুলি বিক্রয় করতে পারেন, তবে এটি করার সঠিক কেীশল জানতে হবে।

হোম বেসড ব্যবসায় হ’ল আপনি কোন বিনিয়োগ না করে শুরু করতে পারেন। নিজের ব্যবসা শুরু করতে আপনার প্রচুর নগদ অর্থের প্রয়োজন নেই।

নীচে দেয়া হল যা আপনাকে বাসায় থেকে ব্যবসায় প্রতিষ্ঠায় সহায়তা করতে পারে:
লক্ষ্য শ্রোতা জানুন/ Know Target Audience
প্রতিযোগীদের সম্পর্কে গবেষণা/ Research about Competitors
আকর্ষণীয় ব্যবসায়ের নাম চয়ন করুন/ Choose a Catchy Business Name
একটি স্লোগান তৈরি করুন/ Create a Slogan
একটি লোগো ডিজাইন করুন/ Design a Logo
ব্র্যান্ডকে সামাজিক নেটওয়ার্কগুলিতে প্রচার করুন/ Promote Brand on Social Networks

https://web.facebook.com/FreelanceHow-113290897209295

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here