আপনি কি অনলাইনে আয় করতে চান?  

আপনি অনলাইনে আয় করতে চান আর আপনি কি আগে অনলাইনে অর্থোপার্জনের চেষ্টা করেছিলেন কিন্তু সাফল্য পাননি? তাহলে আর চিন্তা করার দরকার নেই, আমি আপনাকে দেখাব যে কি করে অনলাইনে আয় করতে হয়! কারণ আমরা ইতিমধ্যে বিশ্বজুড়ে ৫,০০,০০০ এরও বেশি লোককে/ফিন্যান্সারকে প্রশিক্ষণ দিয়েছি এবং তারা প্রতিমাসে তখন থেকে সফলভাবে মাসে $ ৩০০ ডলার থেকে $ ২,০০০ডলার আয় করছে।

অনলাইনে অর্থ উপার্জনের জন্য আমরা আপনাকে কয়েকটি সেরা পদ্ধতির দেখায়ছি। যা আপনাকে খুব দ্রুত আপনার আয়ের বৃদ্ধি করতে সহায়তা করবে সহজ ভাবে। তবে আপনি হ্যাঁ, এই ওয়েবসাইটের সমস্ত কিছুই বিনাখরচে/নিখরচায় এবং বিনা বিনিয়োগে।

১৫ টি উপায় অনলাইনে আয়

অনলাইন আয়

  • নীচের কয়েকটি সেরা উপায় পরীক্ষা করে দেখুন আর তাড়াতাড়ী কাজ করে অনলাইনে আয় করা শুরু করুন;

১. ব্লগিংয়ের মাধ্যমে আয় করুন/Earn Money with Blogging

আমি আগামী ৭ থেকে ৮ বছর ধরে ব্লগিংয়ের মাধ্যমে আয় করছি। আমি ১ মিলিয়নেরও বেশি ডলার আয় করেছি ব্লগিংয়ের মাধ্যমে। আমি যখন ব্লগিং শুরু করেছিলাম তখন আমি খুব বড় ধরনের বিভ্রান্তির মধ্যে পড়েছিলাম। আমি অনলাইনে ২০১২ সালে শুরু করার পরে ব্লগিং সম্পর্কে আমার প্রথমত কোনও ধারণা ছিল না।  কিন্তু আমি খুব কঠোর পরিশ্রম করেছিলাম, তবে প্রায় ১ বছর ধরে ব্লগিংয়ের মাধ্যমে কোনও আয় করতে পারি নি আমি।

আমি কখনও এই ব্লগিং করতে হাল ছাড়িনি! আমি কীভাবে নতুন ‘ একটি ব্লগ তৈরি করব’, ‘কীভাবে অনলাইনে আপনার ব্লগে লিখতে হবে’ এবং ‘কীভাবে অনলাইনে আপনার ব্লগ প্রচার করতে হয়’ ইত্যাদি বিষয়গুলিতে আমার জানতে হয়েছিল। আর এইসব জিনিসগুলি ১ বছর পরে আমার পক্ষে শুরু সম্ভব হয়েছিল। আমি ব্লগিং থেকে আমার প্রথম $ ১০০ ডলার আয় করেছিলাম। আজ আমি ব্লগিং থেকে প্রতি মাসে $ ২৫,০০০ ডলার আয় করছি।

আপনি পড়লে জানতে পারবেন যে, আমার ব্লগিং যাত্রা কিভাবে শুরু করেছিলাম, আমার আয়ের প্রমাণ এবং বিনামূল্যে কোনও ব্লগ কীভাবে শুরু করবেন সে সম্পর্কে একটি সম্পূর্ণ ধারনা সম্পর্কে আপনি আরও জানতে পারেন।

২. লেখা লেখির কাজ করে আয় করুন/Writing Job

বিভিন্ন ধরণের লেখার কাজ করার মাধ্যমে ইন্টারনেটে অনেক আয় করা সম্ভব আরও একটি ভাল উপায় এখানে আয় করার। আপনি লেখা লেখির কাজ করতে পারেন তা হল ব্লগ, প্রতিষ্ঠানগুলি, কোম্পানিগুলি, কোন ব্যক্তির ইত্যাদির জন্য লিখতে পারেন বিভিন্ন ধরণের লেখককে আলাদাভাবে অর্থ প্রদান করা হয় তাদের কাজের বিনিময়ে।

সাধারণত কোম্পানি গুলি তাদের ৫০০ শব্দের লেখা লেখির জন্য $ ৫ ডলার থেকে ১৫ ডলার অর্থ প্রদান করে থাকেন। আপনার যদি লেখা লেখির দক্ষতা ভাল না থাকে তবে আপনি এই পোস্টটি পড়তে পারেন আর ভাল একজন ফ্রিল্যান্সার এর লেখক হতে পারেন।

অনলাইনে লেখা লেখির কাজ খুঁজতে আপনি কিছু ওয়েবসাইট দেখুন যেমনঃ আপওয়ার্ক, রাইটারবা, ফ্রিল্যান্স রাইটিং, টেক্সটব্রোকার, আইওয়ারাইটার, এক্সপ্রেস রাইটার্স ডটকম, ফ্রিল্যান্স রাইটিংগ্রিস ডটকমের মতো সাইটে যেতে পারেন তাহলে আপনি আপনার মতন করে কাজ পেতে সুবিধা হবে।

৩. ফ্রিল্যান্সার হয়ে আয় করুন/Freelancer

ফ্রিল্যান্সিং হ’ল ব্লগিং এবং অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর পরে আরও একটি জনপ্রিয় আয়ের উপায়। ফ্রিল্যান্সার হিসাবে, আপনি ছোট বা বড় কোম্পানির সাথে পার্ট টাইম কাজ করতে পারেন এবং তাদের আপনি সেবা প্রদান করতে পারেন, কাজের বিনিময়ে কোম্পানিগুলো আপনাকে একটা অর্থ দিয়ে থাকে।

ফ্রিল্যান্সাররা আপনার ক্লায়েন্টের জন্য যে ধরণের ফ্রিল্যান্স কাজ করবেন তার উপর নির্ভর করে তারা প্রতি মাসে $ ৩০০ ডলার থেকে $ ২,০০০ ডলার আয় করতে পারেন আপনি। আপনি কোনও বিষয়বস্তুর লেখক/Content writer, ওয়েব ডিজাইনার/Web designer, গ্রাফিক্স ডিজাইনার/Graphics designer হিসাবে কাজ করতে পারেন বা এসইও/SEO, ডেটা এন্ট্রি/Data entry, ভিডিও প্রশংসাপত্র/Video testimonials, ডিজিটাল বিপণন/Digital marketing ইত্যাদির মতো সেবা সরবরাহ করতে পারেন আপনারা।

আর সাইট এখানে আপওয়ার্ক/UpWork, ফ্রিল্যান্সারডটইন/Freelancer.in, ওয়ার্কএনহায়ার/WorkNHire এবং আরও অনেক ফ্রিল্যান্স সাইটগুলির মতো জনপ্রিয় ওয়েবসাইট রয়েছে যা আপনাকে ক্লায়েন্টদের সাথে রেডি প্ল্যাটফর্ম দিতে পারে।

৪. অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করুন/Earn with Affiliate Marketing

আপনি যদি অনলাইনে আয়ের বিষয়ে অনেক উৎসাহীত হন আর আপনি যদি একজন কঠোর পরিশ্রমী লোক হন, যিনি একটা ভাল আয়ের আশা করেন তবে এই অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং আপনার জন্য করতে হবে। অনলাইন শপিংয়ের ভাল আয়ের জন্য এখন আগের চেয়ে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং আরও সুযোগ আছে।

আপনার এখন অ্যামাজন,ইবে, ক্লিকব্যাঙ্ক, ফ্লিপকার্ট, সিজে ইত্যাদির মতো শত শত অনলাইন সাইট রয়েছে, যেখানে আপনি তাদের পণ্যগুলিতে সাইন আপ করে ও প্রচার সেখান থেকে আপনি আয় করতে পারেন। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সাইটে আপনি খুব সহজে ওয়েবসাইট তৈরি করে, অনলাইন শপিং গ্রাহকদের সঠিক পণ্য কিনতে সহায়তা করছেন এবং বিনিময়ে আপনি মার্কেটিংয়ের জন্য ৪% থেকে ২০% কমিশন আয় করতে পারবেন।

আপনি কোন রকম খরচ ছাড়ায় প্রশিক্ষণের জন্য সাইনআপ করতে পারেন যাতে আমরা আপনাকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের জন্য অন্যতম সেরা মানের গাইড পাঠাতে পারি আর আপনি খুব ভাল আয় করতে পারে।

৫. ক্যাপচা সোলভ করে আয় করুন/Captcha Solver

যদি আরও ফ্রি সময় থাকে আপনার তবে দিনে ২ ঘন্টা কাজ করে আপনি বাড়তি আয় করতে পারেন। আপনি এখন ক্যাপচা সলভার হিসাবে কাজ করে আপনার পকেটে আরও ভাল একটা আয় করতে পারেন। এটি আপনি বাসায় থেকে কাজ করে অনলাইনে আয়ের অন্যতম সহজ উপায়। ক্যাপচা সলভার হিসাবে আপনাকে ক্যাপচা ছবিগুলি পড়তে হবে এবং সঠিক অক্ষরগুলি টাইপ করতে হবে নির্দিস্ট বক্সে। তারপর তা সঠিক হলে তখন আপনাকে তার জন্য কিছু অর্থ আয় করতে পারেন।

তবে আরও ভাল আয় করতে আপনার খুব ভাল কাজের জন্য অভিজ্ঞ হওয়া দরকার। আপনাকে ক্যাপচা সোল্ভ হওয়ার পরে কোম্পানি আপনাকে প্রতি ১০০০টি ক্যাপচারের জন্য আপনি $ ২ ডলার পর্যন্ত করতে পারবেন। আপনি যদি এই কাজ টি করতে উৎসাহী হন তবে আপনি ১০টি সেরা ক্যাপচা কাজের সাইটের তালিকা খোঁজ করতে পারেন।

৬. ভার্চুয়াল সহকারীর কাজ করে আয় করুন/Virtual Assistant

আপনি হতে পারেন ভার্চুয়াল সহকারী এমন একজন ব্যক্তিগত সহায়ক। যেমন আপনি সেখানে নিজে শারীরিকভাবে উপস্থিত না হয়ে কারও জন্য বা কোন কোম্পানির হয়ে অনলাইনে কাজ করে আয় করতে পারেন।

আপনি অনলাইনে কাজ করতে পারেন যেমনঃ ওয়েবসাইটের যত্ন নেওয়া/Taking care of Websites, কাউন্সেলিং/Counseling, লেখা ও প্রুফরিডিং/Writing & Proofreading, সামগ্রী প্রকাশনা/Publishing Content, বিপণন/Marketing, কোডিং/Coding, ওয়েবসাইট এবং অ্যাপ্লিকেশন বিকাশ/Website & App Development, গবেষণা/Research ইত্যাদি বিভিন্ন ধরনের কাজ করে আয় করতে পারেন। আরও আপনার কাজের খোঁজ করতে পারেন যেমনঃ HireMyMom, MyTasker, Zirtual, uAssistMe, 123Employee এর মতো ভাল মানের কোম্পানি রয়েছে যেখানে আপনি ভার্চুয়াল সহকারী হিসাবে কাজের জন্য সাইন আপ করতে পারেন। এখানে আপনি কাজ করে মাসে $ ৫০০ থেকে $ ২,০০০ ডলার আয় করতে পারেন।

৭. অনলাইন সার্ভে করে আয় করুন/Make Money with Online Surveys

আপনি এখানে ছোট সার্ভের সম্পূর্ণ কাজ করে আয় করতে পারেন যা কোনও নির্দিষ্ট কোম্পানির উপর নির্ভর করে ৫ মিনিট থেকে ১৫ মিনিট সময় নেয়। আপনার সার্ভে আপনার ফিডব্যাক ও আপনার মতামত অনলাইনে লিখতে হবে। প্রশ্ন থেকে আপনার পছন্দটি নির্ধারন করতে হবে আর তার জন্য কোন কিছু লেখার দরকার নেই।

আপনার সার্ভের দৈর্ঘ্য, আপনার প্রোফাইল এবং আপনি যে দেশে বাস করছেন তার উপর নির্ভর করে আপনি $ ১ ডলার থেকে ১০ ডলার আয় করতে পারবেন।

৮. মাইক্রো-ওয়ার্কিং/Micro-working

অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং কাজ পেতে আরও কিছু উপায় রয়েছে যা পার্ট টাইমে কাজ করে আপনাকে অতিরিক্ত আয় করতে সহায়তা করতে পারে। আপনি সহজেই বিভিন্ন সাইটে অনলাইনে কাজ করে প্রতি মাসে $ ২০০ থেকে $ ৫০০ ডলার আয় করতে পারবেন। এখানে আপনি বিভিন্ন ধরনের অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং কাজ করতে পারেন যেমন বিভিন্ন জিনিস চিহ্নিত করা, রেটিং করা এবং বিভিন্ন সাইটে মন্তব্য করা, যোগাযোগের বিশদ সন্ধান করা, ছোট গবেষণা করা, কিছু ওয়েবসাইট পরিদর্শন করা, ছোট নিবন্ধগুলি লেখার কাজ করতে পারেন।

অনেকগুলি অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট রয়েছে যেখানে আপনি কোম্পানির একজন মাইক্রো কর্মী হিসাবে কাজ করতে পারেন যেমনঃ এমটুর্ক, মাইক্রো ওয়ার্কার, এসইওকার্কার্ক, ক্লিক ওয়ার্কার, গিগওয়ালকের মতো আর আপনি এই কজের জন্য অতিরিক্ত আয় করতে পারবেন। আমরা আপনাকে মাইক্রো-কর্মী হিসাবে কীভাবে কাজ করতে হবে তা সাইনআপের পরে আপনি ভাল ভাবে বুঝতে পারেন এবং আর আপনি কিভাবে অর্থ উপার্জন করবেন তা দেখাব।

৯. ইউটিউবার হয়ে আয় করুন/YouTuber

আপনি অনলাইনে অর্থোপার্জনে জন্য ইউটিউব হটেস্ট ট্রেন্ডিং কাজ করতে পারেন। তবে আপনি আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি শুরু করতে পারেন, কিছু ভাল মানের ফ্যানি ভিডিও আরও অন্যান্য ভিডিও আপলোড করতে পারেন এবং তারপরে ইউটিউবে অনলাইনে অর্থ উপার্জনের জন্য YouTube এর ইউটিউবার বা পার্টনার হয়ে উঠতে পারেন।

আপনার মনে হয় যে কোনও রকমের বিভিন্ন ধরণের ভিডিও মানুষের জন্য দরকারী আপনি ঠিক তেমন কিছু ভাল ভিডিও তৈরি করুন যেমনঃ প্রানক ভিডিও, কৌতুক ভিডিও, রান্নাকরা রেসিপি, কীভাবে তৈরি করতে হয় ভিডিও, ভ্রমণের টিপস, এমন কিছু যা আপনি ভাবছেন, আর যেটা মানুষের ব্যবহার উপযোগী।

আপনি যদি একবার আপনার চ্যানেলের ভিডিও ভিউ এবং গ্রাহকরা পেয়ে যান তবে আপনি ইউটিউবের পার্টনার/অংশীদার প্রোগ্রামের জন্য আবেদন করতে পারেন খুব সহজে। আপনি আপনার চ্যানেলটি অনুমোদনের পরে যখন লোকেরা আপনার ভিডিওগুলিতে বিজ্ঞাপনগুলিও দেখতে পাবে তখন আপনি আপনার ভিডিও থেকে প্রাপ্ত প্রতিটি বিজ্ঞাপন দেখার জন্য আপনি একটা ভাল আয় করবেন।

আপনি আপনার ব্যবহারিত স্মার্টফোন বা অন্য কোনও ডিএসএলআর ক্যামেরা থেকে এই সুন্দর ভিডিও গুলি তৈরি করতে পারেন। ইউটিউবে অর্থোপার্জনের জন্য আপনি এই চূড়ান্ত গাইডটি পড়তে পারেন, যা আপনার সামনের দিকে আগিয়ে নিতে সাহায্য করবে।

১০. অনলাইন বিক্রেতা হয়ে আয় করুন/Become an online seller

অনলাইন মার্কেটিং করে এখন সকলে প্রচুর আয় করছে। অনলাইন বিক্রয় হল একটা ঐতিয্যবাহী বিক্রয়ের মতো নয়। আপনার পণ্য স্থানীয় বাজারের বাইরে আপনার পণ্যের আইটেমগুলি বিক্রির খুব বেশি সুযোগ নেই, তবে আপনি এখানে অনলাইনে বিক্রয়ের ক্ষেত্রে নিজের পণ্যটি সারা দেশে বিক্রি করতে পারেন, আপনি একজন অনলাইন বিক্রেতা হিসাবে করে।

আপনার অনলাইনে যেকোন কিছু বিক্রি করার জন্য দুটি উপায় রয়েছে।

আপনি নিজের আপনার অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে একটা অনলাইনে ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন এবং আপনার তৈরিকৃত ওয়েবসাইট থেকে আপনার পণ্যগুলি আপনি বিক্রি করতে পারেন বা অ্যামাজন, ইবে, ফ্লিপকার্ট, স্ন্যাপডিল ইত্যাদির মতো কোনও বিখ্যাত শপিং পোর্টালে বিক্রয়কারী হয় আপনি সেখানে পণ্য বিক্রয় করতে পারেন।

দ্বিতীয় বিকল্পটি আপনার জন্য আরও ভাল আপনি এই জনপ্রিয় পোর্টালগুলির বিদ্যমান গ্রাহকদের পাবেন।

এখন আপনি নিশ্চয়ই ভাবছেন যে আমার কোনও পণ্য না থাকলে আমি কী অনলাইনে বিক্রয়কারী হয়ে বিক্রি করতে পারবোনা? আমি অনলাইনে অনেক অ্যামাজন এবং ফ্লিপকার্ট বিক্রেতাকে দেখেছি যাদের কোন পণ্য নেই অনলাইনে, তবুও তারা এই সাইটগুলিতে প্রচুর পরিমাণে বিক্রয়কারী হিসাবে পণ্য বিক্রি করছে।

আপনি যা করতে পারেন তা হ’ল আপনার শহরে আপনি অনলাইনে পণ্য বিক্রয় করার জন্য পণ্য খুঁজতে ঘুরে বেড়ান আর এই সাইটগুলিতে বিক্রয়কারী হিসাবে আপনি পণ্য বিক্রি করতে পারেন এমন সেরা পণ্যগুলি খুঁজুন। আপনি পাইকার এবং উৎপাদনকারীদের খোঁজ করতে পারেন যারা আপনাকে এই পণ্যগুলি অত্যন্ত ভাল ছাড়ের মাধ্যমে আপনার নিকট বিক্রয় করতে পারে।

আপনি আপনার এই সকল সংগ্রহীত পণ্যগুলি অ্যামাজন, ইবে ইত্যাদিতে তালিকাভুক্ত করতে পারেন এবং বেশি দামে আপনি বিক্রয়কারী হিসাবে বিক্রয় করে আয় করতে পারেন। আপনার ক্রয় করে আনা উচিত এমন পণ্য যা আপনি বাজারের দামের চেয়ে কম দামে বিক্রি করতে পারেন এমন সেরা পণ্যগুলি । আপনাকে এখানে বিশ্বাস করা উচিত যে, এটি আপনার চিন্তার চেয়ে সহজ মাধ্যম অর্থ আয়ের। কেবলমাত্র আপনাকে যা করতে হবে তা হল নিজের উৎসাহের সাথে নিজের পদক্ষেপ নেওয়া।

১১. ডোমেন ট্রেডার/Domain Trader

এখানে ডোমেন ট্রেডিং হ’ল একটি উচ্চতর লাভজনক ব্যবসা যা আপনি অনলাইনে করতে পারেন সহজভাবে। তবে এখানে আপনার অনলাইনে ডোমেন কেনার জন্য কিছু ডলারের/বিনিয়োগের দরকার। আপনাকে অবশ্যই দক্ষ হতে হবে বা এই ব্যবসাটি শুরু করার আগে আপনার অবশ্যই সকল বিষয় জ্ঞান অর্জন করা উচিত।

স্বল্প মূল্যে আপনি GoDaddy বা অন্যান্য ডোমেন রেজিস্ট্রারের কাছ থেকে $ ১০ ডলারেরও কম দামে ডোমেইন কিনতে পারেন আর আপনি এটা কিছু ব্যক্তির কাছে কয়েকশো ডলারের বিনিময়ে বিক্রয় করতে পারেন আপনার ব্যবহারকারীর নিকট। আপনার দক্ষতা থাকতে হবে এমন কিছু ডোমেন খুঁজে বের করা যা এখনও পর্যন্ত বুকিং করা হয়নি এবং ভবিষ্যতে কোম্পানিগুলি সেই ডোমেনটি কেনার চেষ্টা করতে পারে, তখন আপনি এই সকল ডোমেইনের জন্য একটা ভাল মূল্য পাবেন।

সকল কোম্পানিগুলি যখন তাদের নিজেদের পছন্দের ডোমেনটি খুঁজে পায় না, তখন তারা ডিলের জন্য ডোমেনের মালিকের সাথে যোগাযোগ করে এবং তখন ডোমেইন বিক্রয় করতে হয়, আর দাম নির্ধারণ করা আপনার নিয়ন্ত্রণে থাকে। এমনকি আপনি নিজের ডোমেনগুলি নিলামেও রাখতে পারেন বিক্রয়ের জন্য, যাতে লোকেরা আপনার মূল্যে ডোমেইন সরাসরি কোম্পানি কিনতে পারে।

১২. ওয়েবসাইট উল্টানো/Website flipping

ওয়েবসাইট ফ্লিপিং হ’ল ডোমেন ট্রেডিংয়ের মতো অনলাইনে অর্থোপার্জন করাও এক বড় ধরনের লাভজনক ব্যবসা। এখানে আপনি বিক্রয়ের জন্য ডোমেনগুলি কিন্তু ওয়েবসাইট গুলির সাথে ডিল/ট্রেড করেন না। আপনাকে একটি অনলাইনে ভাল মানের ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে, যা সেটা ৫ থেকে ৬ মাস বা তারও বেশি সময় ধরে কাজ করতে হবে যাতে করে আপনি ওয়েবসাইটগুলি থেকে একটা ভাল আয় শুরু করতে পারেন।

আপনি এখানে ৩ থেকে ৪ মাস আয় করার পরে, আপনি সেই সাইটটি ফ্লিপা, এম্পায়ারফ্লিপার্স ইত্যাদিতে নিলামে রাখতে পারেন যে, ওয়েবসাইট থেকে আপনি সহজেই আপনার মাসিক আয়ের ২০ থেকে ২৫ গুণ মূল্য পেতে পারেন। একটি নতুন সাইট তৈরি করে তা বাড়ানোর চেয়ে একটি পুরানো সাইটগুলি বৃদ্ধি করা আরও সহজতর। অনেক অভিজ্ঞ ব্যক্তি ফ্লিপ্পার কাছ থেকে ওয়েবসাইট কিনে থাকে, এই অনলাইন সাইটগুলিতে অনেকে ৪ থেকে ৫ মাস ধরে কাজ করেন আর তারা এখান থেকে দুইগুণ বা তিনগুন আয় করে থাকেন।

১৩. স্টক এবং ফরেক্স ট্রেডিং/Stock & Forex Trading

যাদের বর্তমান অনলাইনে বাজার সম্পর্কে ভাল ধারণা/জ্ঞান আছে তাদের আয় করার জন্য শেয়ার বাণিজ্য ও ফরেক্স ট্রেডিং একটি খুব লাভজনক উপায়। ইন্টারনেটে অনেকগুলি সাইট রয়েছে যেখানে আপনি কোন রকম খরচ ছাড়া/নিখরচায় বা প্রদেয় কোর্স যা আপনাকে অনলাইন ট্রেডিংয়ের জন্য প্রশিক্ষণ দিতে পারে সহজভাবে। এখানে যদি আপনি আরও বিশেষজ্ঞ হওয়ার জন্য এমনকি অর্থনৈতিক সময়ের মতো সংবাদপত্র পড়তে পারেন বা সিএনবিসির মতো টিভি চ্যানেলগুলি দেখতে পারেন যেখানে শেয়ার বাণিজ্য ও ফরেক্স ট্রেডিং নিয়ে আলোচনা করা হয় সবসময়। আপনার পর্যাপ্ত জ্ঞান ছাড়াই আপনার এই শেয়ার বাণিজ্য ও ফরেক্স ট্রেডিং বাজারে প্রবেশ করা ঝুঁকিপূর্ণ।

১৪. অনলাইনে ফটো বিক্রি করুন/Sell photos online

স্মারতফোনে ফটো বিক্রি করে আপনি অনলাইনে আয় করতে পারেন অনেক সাইটের মাধ্যমে। এটি এখন আপনার স্মার্টফোনের আয়ের আরও একটি ব্যবহার। আপনি প্রকৃতির, মানুষ, জিনিসপত্র, জায়গাগুলি, বাসন, ঘর ইত্যাদির উন্নতমানের ছবি তুলতে পারেন আর এগুলি আপনি অনলাইনে বিক্রয় করতে পারেন বিভিন্ন সাইটে একটা ভাল অর্থের বিনিময়ে।

এখানে অনেক বড় বড় সাইট রয়েছে যেমনঃ শাটারস্টক, আইস্টকফোটো, ফোটোলিয়া, ফটোবুক্টের মতো যেখানে আপনি বিক্রয়ের জন্য বা ভাল আয়ের জন্য নিজের ফটো আপলোড দিতে পারবেন। যখনই কোনও গ্রাহক আপনার ফটোগুলি কিনতে চাইবে, আপনি যে মূল্য নির্ধারণ করেন ঠিক তাই বিক্রি হবে আর সে অনুযায়ী আপনাকে অর্থ প্রদান করা হবে। আপনি একই ফটো/ছবি একাধিকবার বিক্রি করতে পারেন আর এর জন্য আপনি একাধিক সময় অর্থ পেতে পারেন। আরও তথ্যের জন্য এই MoneyConnexion পোস্টটি পড়ুন।

১৫. ওএলএক্স বা কুইক্রে পুরানো জিনিস বিক্রি করুন/Sell old stuff on OLX or Quikr

আপনার বাড়িতে এমন কিছু জিনিস থাকতে পারে যা অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে রয়েছে আর যদি আপনি বিক্রি করতে চান তবে আপনি কিছু ভাল অর্থ পেতে পারেন তা বিক্রি করে। আপনার এমন কিছু কাজ করা দরকার, এমন জিনিস যা আপনি এখন আর ব্যবহার করছেন না এই সমস্ত আইটেম খোঁজ করুন, বিভিন্ন কোণ থেকে এই আইটেমগুলির উন্নত মানের ফটোগুলি তুলে নিন এবং এই আইটেমগুলি ওএলএক্স এবং কুইক্রে বিক্রয়ের জন্য আপলোড/তালিকাভুক্ত করুন বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে।

শুধুমাত্র এটিই নয় বরং আপনি আপনার বন্ধুরা এবং আত্মীয়দের তাদের পুরানো জিনিস বিক্রি করার জন্যও জিজ্ঞাসা করতে পারেন, যেন আপনি এই সাইটে বিক্রয় করতে পারেন। আপনি এই আইটেমগুলি তাদের হয়ে বিক্রয় করতে এবং কিছু কমিশন পেতে তাদের সহায়তা করতে পারেন অনলাইনে বিক্রয়কারী কর্মী হয়ে। সুতরাং এই ১৫ টি উপায় আপনার প্রশ্নের সঠিক উত্তর প্রদান করতে পারে যে “কীভাবে অনলাইনে আয় করতে হয়” আর  সাহায্য নেয়ার ক্ষেত্রে আপনি আমাদের একটি ইমেল করতে পারেন।

2 COMMENTS

  1. আমি ৫নম্বরটি ভালো কাজ করতে পারবো। সাহায্য করেন আমাকে। এই কাজটি পেতে হলে কি করতে হবে আমাকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here